ভূগোল ও পরিবেশ বিসিএস প্রস্তুতি পর্ব-০৩।


পোস্ট করা হয়েছে:- জুলা ১ ২০১৬| পোস্টটি করেছেন:- |পোস্টটি পড়া হয়েছে:- 683বার
পোস্টটি শেয়ার করুণ

বিসিএস ও অন্যান্য চাকরী পরীক্ষার জন্য ভূগোল ও পরিবেশ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটি আগে সাধারন বিজ্ঞানের অন্তর্ভূক্ত ছিল। এখন আলাদা সিলেবাস হয়েছে। ভূগল ও পরিবেশের বিষয়গুলো অনেকটা সাধারন জ্ঞান ও সাধারন বিজ্ঞানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। আলাদা করা অনেক সময় কঠিন হয়ে যায়। বিসিএস প্রিলীমিনারী পরীক্ষায় ২০০ নম্বরের মধ্যে ১০ নম্বর আসবে ভূগোল ও পরিবেশ থেকে। তাই বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য আমরা শুরু করেছি ধারা বাহিক টিউটরিয়াল ভূগোল ও পরিবেশের উপর।  বিসিএস পরীক্ষা বা অন্যান্য পরীক্ষার জন্য নিয়মিত পড়ুন আমাদের ভূগোল ও পরিবেশর পোস্টগুলো। আজকের পর্বে ইনশাআল্লাহ জানবো ভূগোল ও পরিবেশ সম্পর্কে নতুন কোন তথ্য।

১।বায়ু কোন দিকে প্রবাহিত হয়?

উত্তরঃ- বায়ু উচ্চচাপ হতে নিম্ন চাপের দিকে প্রবাহিত হয়।

২। অক্ষাংশে রেখার প্রভাব বেশি কিসের উপর?

উত্তরঃ- বায়ু ও তাপের উপর

৩।দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন কাজকে পর্যায়ক্রমে সাজাতে হলে যে কাজটি সর্বপ্রথমে করতে হবে-

উত্তরঃ- ঝুঁকি চিহ্নিতকরণ

৪।সাইক্লোন কোন শব্দ?

উত্তরঃ- এটি একটি গ্রীক শব্দ (Kyklos) থেকে এসেছে।

৫। দক্ষিণ এশিয়াতে ঘুর্ণিঝড়কে কী বলে?

উত্তরঃ- সাইক্লোন

৬। আইরিন কী?

উত্তরঃ-যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানা একটি ঘুর্ণিঝড়।

৭। সাগরে ঘুর্ণিঝড়ের তীব্রতা বৃদ্ধি পেলে-

উত্তরঃ- জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা বৃদ্ধি পায়।

৮।সাইক্লোনের মতো টর্নেডো সৃষ্টির মূল কারণ কী?

উত্তরঃ-লঘু বা নিম্নচাপ সৃষ্টি হওয়া।

৯। অপর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত হলে কী কমে যায়?

উত্তরঃ- মাটির আদ্রতা

১০।দুর্যোগ কোন ধরনের ঘটনা?

উত্তরঃ- বিপর্যয় পরবর্তী ঘটনা।

১১। সমুদ্রের গভীরতা নির্নয় করা কিসের দ্বারা?

উত্তরঃ- প্রতিধ্বনির সাহায্যে

১২। ভূ-পৃষ্ঠের সৌরদীপ্ত  ও অন্ধকারাচ্ছন্ন অংশের সংযোগস্থলকে কী বলে?

উত্তরঃ- ছায়াবৃত্ত

১৩। সৌরজগতের বৃহত্তম গ্রহ কোনটি?

উত্তরঃ- বৃহস্পতি

১৪। সৌরজগতের ক্ষুদ্রতম গ্রহ কোনটি?

উত্তরঃ- বুধ

১৫।সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ কোনটি?

উত্তরঃ-শনি

১৬। পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ কোনটি?

উত্তরঃ-চাঁদ

১৭। যে বায়ু সর্বদাই উচ্চচাপ অঞ্চল হতে নিম্নচাপ অঞ্চলের দিকে প্রবাহিত হয় তাকে কী বলে?

উত্তরঃ- নিয়ত বায়ু

১৮। গ্রীন হাউজ প্রতিক্রিয়া বাংলাদেশের জন্য ভয়াবহ আশঙ্কার কারণ-

উত্তরঃ- সমুদ্রতলের উচ্চতা বেড়ে যেতে পারে।

১৯। ঘূর্ণিঝড় ও দূর্যোগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের একমাত্র পূর্বাভাস কেন্দ্রের নাম কী

উত্তরঃ- স্পারসো।

২০।সবচেয়ে বেশি ভূমিকম্প হয় কোথায়?

উত্তরঃ- প্রশান্ত মহাসাগরের বহিঃসীমানা বরাবর।

২১। গ্রেট বেরিয়ার রীফ কোথায় অবস্থিত?

উত্তরঃ- প্রশান্ত মহাসাগরে।

২২। জলবায়ু কাকে বলে?

উত্তরঃ- সাধারনত কোন স্থানের ৩০-৪০ বছরের গড় আবহাওয়াকে জলবায়ু বলে।

২৩।বিষুবরেখার (Equator) নামানুসারে কোন দেশের নাম করন করা হয়েছে?

উত্তরঃ- ইকুয়েডর

২৪। জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে ব্যপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কোনটি?

উত্তরঃ-প্রাকৃতিক পরিবেশ।

২৫।  পৃথিবীর মোট চাপ বলয় কয়টি?

উত্তরঃ- ৭টি।

২৬। বাংলাদেশে মহাদেশীয় বায়ু প্রবাহিত হয় কোন কালে?

উত্তরঃ- শীতকালে।

২৭। বাংলাদেশের সাথে ভারতের সীমানা কত কিলোমিটার?

উত্তরঃ- ৪১৫৬ কিলোমিটার।

২৮। উপকূল হতে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমুদ্রসীমা কত ?

উত্তরঃ-২০০ নটিক্যাল মাইল।

২৯। ‘আরব বসন্ত’ বলতে কী বোধায়?

উত্তরঃ- আরবের বিভিন্ন দেশে গণজাগরণ।

৩০। এশিয়াকে আফ্রিকা মহাদেশে থেকে বিচ্ছিন্ন করেছে কোনটি?

উত্তরঃ- লোহিত সাগর।

৩১। এশিয়ার কোন অঞ্চলে সারা বছর পরিচলন বৃষ্টি হয়?

উত্তরঃ- মালেশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া।

৩২। ভূমধ্যসাগর ও আটল্যান্টিক মহাসাগরের মধ্যে কোন প্রণালীটি অবস্থিত?

উত্তরঃ- জিব্রাল্টার প্রণালী।

৩৩। আমেরিকাকে এশিয়া থেকে পৃথক করেছে কোন প্রণালী?

উত্তরঃ- বেরিং প্রণালী।

৩৪।সমুদ্রপৃষ্ঠ ৪৫সেমি বৃদ্ধি পেলে ২০৫০ সাল নাগাদ বাংলাদেশে Climate Refugee হবে-

উত্তরঃ- ৩.৫ কোটি

৩৫।গ্রীণহাউজ ইফেক্ট বলতে কী বুঝায়?

উত্তরঃ- তাপ আটকে পড়ে সার্বিক তাপমাত্র বৃদ্ধি।

৩৬।কিয়োটা চুক্তির মূল উৎস কী?

উত্তরঃ- উষ্ঞতা হ্রাস।

৩৭। ভূপৃষ্ঠর উপরিভাগে জীবমন্ডলের ব্যাপ্তি কত কিলোমিটার?

উত্তরঃ- প্রায় ১০ কিলোমিটার।

৩৮।বায়ূ সর্বদা একস্থান থেকে অন্যস্থানে প্রবাহিত হওয়ার কারণ কী?

উত্তরঃ- তাপ ও চাপের পার্থক্যের কারণে।

৩৯।দিনের বেলায় বায়ু সমুদ্র থেকে প্রবাহিত হওয়ার কোন দিকে?

উত্তরঃ- স্থলভাগের দিকে।

৪০। বাংলাদেশে বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমান কত?

উত্তরঃ- ২০৩ সেন্টিমিটার।

পোস্টটি শেয়ার করুণ

সর্বশেষ আপডেট: জুলাই ১st, ২০১৬ সময়: ৩:৩৮ পূর্বাহ্ণ, আপডেট করেছেন মুনজুরুল আলম (এডমিন)


লেখক পরিচিতিঃ- মুনজুরুল আলম (এডমিন)

আসসালামু আলাইকুম। আমি মুনজুরুল আলম। বর্তমানে একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছি। আমি ছোট বেলা থেকে লেখলেখি করায় মজা পাই। আমি মনে করি জানার কোন শেষ নেই। আমি সবার কাছ থেকে শিখতে পছন্দ করি। আর আমার শেখা তখনই স্বার্থক হবে যখন তা অন্যের কাছে পৌছে দিতে পারব।আর আমি চাই সবাইকে আমার ওয়েবসাইটে মেধা বিকাশের সুগোয দিতে। তাই আপনিও পারেন আমাদের ওয়েব সাইটের একজন লেখক হতে। তাহলে আজই রেজিস্ট্রেশন করুন ।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.